Responsive Ad Slot

Latest

latest

কি হবে যদি সমুদ্রের জল শুকিয়ে যায়?

তবে কাল্পনিক হলেও আমরা সায়েন্সের থিওরী দিয়ে জানার চেষ্টা করবো ।আপনি যদি এই সমস্ত জলকে অলিম্পিক সাইজের সুইমিংপুলে ভর্তি করা শুরু করেন

সোমবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২২

/ by Nuralam

কি হবে যদি সমুদ্রের জল শুকিয়ে যায়
পৃথিবীর সমস্ত সমুদ্রের জল নিমেষের মধ্যে শুকিয়ে যায় ছবি ।


আজকের পোষ্টা একটু কাল্পনিক অতএব আশা করব আপনারা কাল্পনিকভাবে এই পোষ্টি পড়বেন । তবে কাল্পনিক হলেও আমরা সায়েন্সের থিওরী দিয়ে জানার চেষ্টা করবো । কি হতে পারে যদি পৃথিবীর সমস্ত সমুদ্রের জল নিমেষের মধ্যে শুকিয়ে যায়? কি হবে যদি কোন রহস্যময় পোর্টালকে ব্যবহার করে আমরা পৃথিবীর সমস্ত সমুদ্রের জল কে শুকিয়ে দিতে পারি ? এই বিশাল জলরাশি শুকাতে কত সময় লাগতে পারে্? কয়েক বছর নাকি কয়েক দশক না লক্ষ লক্ষ বছর লেগে যেতে পারে? এরপর একই কোন প্রাণী পৃথিবীতে বেঁচে থাকতে সক্ষম হবে কিন্তু রাতারাতি নিমেষের মধ্যে হয়ে গেলে কি হতে পারে? 

সমুদ্রের জল

ভূপৃষ্টে প্রায় ৭০ ভাগ জায়গায় সমুদ্র দখল করে আছে ।কিন্তু তার মানে কতটা জল আপনি কি কল্পনা করতে পারছেন । আপনি যদি এই সমস্ত জলকে অলিম্পিক সাইজের সুইমিংপুলে ভর্তি করা শুরু করেন । তাহলে আপনার এই ৫৩৫,২০০,০০০,০০০,০০০ এতগুলো অলিম্পিক সাইজের সুইমিংপুল লাগবে । আমরা যদি বাস্কেট বল কোর্টর সাইজের পোর্টাল খুলি তাহলে লক্ষ লক্ষ বছর লেগে যাবে সমুদ্র জল শুকাতে । কিন্তু কি হবে যদি আমরা এমন কোন একটা কাল্পনিক পাম্প আবিষ্কার করতে পারি । যা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই বা কয়েক এক ঘন্টায় সমস্ত সমুদ্রের জল শুকিয়ে দিতে পারবে ।

যারা সমুদ্রের সাঁতার কাটছে উপকূলবর্তী নাবিকরা এবং ক্রস জাহাজের প্যাসেঞ্জার রা তারা খুব দ্রুত এই ইফেটা বুঝতে পারবে । কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই উপকূলবর্তী এলাকায় যারা সাঁতার কাটছিল বা যারা নৌকা বা জাহাজ চালাচ্ছিল তারা সমুদ্রের তলদেশে আছে পড়বে।কিন্তু মাছ সমুদ্রের বড় বড় জাহাজের ক্ষেত্রে এই ব্যাপারটা খুব দূরধশি হয়ে উঠবে । টাইটানিকের মতো বড় সাইজের কোন যদি জাহাজ সমুদ্রের মাঝখানে থাকে ।তাহলে তার ৩০ সেকেন্ড সময় লাগবে উপর থেকে সমুদ্র তলে আছড়ে পড়তে । এবং আছড়ে পড়ার পর আপনি বুঝতে পারছেন ক্ষতবিক্ষত হয়ে ভেঙ্গে পড়বে জাহাজটা ।প্রথম এক মিনিটের মধ্যে মাছ সমুদ্রের সমস্ত বড় বড় জাহাজের সঙ্গে একই রকম জিনিস ঘটবে ।

সামুদ্রিক প্রাণীদের কি হতে

এরপর দেখা যাক সামুদ্রিক প্রাণীদের কি হতে পারে ।আমার মনে হয় আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন এদের কি হতে পারে।নিমিষের মধ্য সমুদ্রের সমস্ত মাছ মারা যাবে এবং বৃষ্টির মতো সমুদ্রের তলদেশে ঝরে পড়তে থাকবে । কারণ সমুদ্রের উপরিতলে যে সমস্ত প্রাণীর ভেসে বেড়ায় তারা সমুদ্রের জল শুকিয়ে যাওয়ার পর সমুদ্রের তলদেশে ঝরে পড়বে । কিন্তু যে সমস্ত সামুদ্রিক প্রাণীর সমুদ্রের তলদেশে থাকে তারা হয়তো জলের স্রোতের সঙ্গে হারিয়ে যেতে পারে । এই সবতো গেলে প্রাথমিক ফলাফল এর পর আসল যে সমস্যাটার সম্মুখীন আমাদের হতে হবে সেটা আলোচনা করা যাক ।

সমুদ্রের তাপমাত্রা

আমাদের সমুদ্র পৃথিবীতে প্রাণের সঞ্চার এর জন্য প্রধানত দুটো কাজ করে থাকে ।প্রথমত সমুদ্রের তাপমাত্রাকে সমুদ্রের জল ধরে রাখে এবং সমুদ্রের স্রোত এর মাধ্যমে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে দেয় । যার ফলে পৃথিবীর তাপমাত্রা মোটামুটি কন্ট্রোলে থাকে ।কোন জায়গায় অতিরিক্ত ঠান্ডা হয়ে যায় না আর কোন জায়গা অতিরিক্ত গরম হয়ে যায় না ।

সমুদ্রে জলচক্র নিয়ন্ত্রিত 

দ্বিতীয় সমুদ্রে জন্য জলচক্র নিয়ন্ত্রিত হয় । সূর্যের তাপে সমুদ্রপৃষ্ঠের জল বাষ্প হয়ে বায়ূমন্ডল বাতাসের সাথে মিশে যায় । এবং তারপরে আপনি জানেন বৃষ্টি হিসেবে পৃথিবীপৃষ্ঠে আবার ঝরে পড়ে । যে মুহুতে পৃথিবী থেকে সমুদ্র হারিয়ে যাবে পৃথিবী একটা জায়গাটিক মরুভূমিতে পরিণত হবে । আপনার বাড়িতে ছাতা থাকলে তার আর কোন প্রয়োজন পড়বে না । কারণ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আর থাকবে না । তবে সূর্যের তাপ থেকে বাঁচার জন্য হয়তো ছাতা আপনার কাজে লাগতেও পারে ।


যদি সমুদ্রের জল শুকিয়ে যায়
যদি সমুদ্রের জল শুকিয়ে যায় ছবি ।

লেক ও নদী

কিন্তু সমুদ্র শুকিয়ে গেলেও পৃথিবীতে বহু বড় বড় লেক মানে রত এবং নদী তো থাকবে । তারা কি আমাদের বাঁচাতে পারবে? কিন্তু দাঁড়ান সমুদ্র ছাড়া পৃথিবীতে ৯৭ শতাংশ জল থাকবেনা । আর লেক ও নদী গুলোতে যে জল থাকবে তা আমাদের বেঁচে থাকার জন্য পর্যাপ্ত নয় । পানীয় জল খুব দ্রুতগতিতে বাষ্পাকারে  উড়ে যাবে কয়েক দিনের মধ্যেই মানুষ এবং সমস্ত প্রাণীরা জলের অভাবে ডিহাইড্রেশন হয়ে মারা যাবে ।

গাছপালা ও জঙ্গল

গাছপালা এবং জঙ্গলের মারা যেতে হয় তো কয়েক সপ্তাহ লাগতে পারে । কয়েক মাসের মধ্যেই জঙ্গল এবং ঝপঝার গুলো শুকনো জ্বালানিতে পরিণত হবে ।এরপর ছোট-বড় দাবানলের ফলে এই সমস্ত কিছুই জ্বলে যেতে শুরু করবে ।প্রায় এক বছরের মধ্যেই পৃথিবীর সমস্ত জঙ্গল জ্বলে পুড়ে শেষ হয়ে যাবে । আর দাবানলের ফলে যত আগুন লাগা শুরু করবে পৃথিবীর অক্সিজেনের পরিমাণ তোত কমে যেতে থাকবে । কারণ আপনি জানেন কোন কিছুকে জ্বলার জন্য অক্সিজেনের দরকার হয় ।ফলস্বরুপ কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেতে শুরু করবে ।

এই পর্যন্ত যদি কোন মানুষ বেঁচে থাকে । তাহলে তারা অনুভব করতে পারবে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে আর শ্বাস প্রশ্বাস চালানোর জন্য উপযুক্ত নয় । এবং সূর্যের প্রচণ্ড তাপে সমস্ত প্রাণীরা মারা যাবে । পৃথিবী অনেকটা শুক্র গ্রহের মতো হয়ে যাবে । অতএব জল দূষণ এবং জল অপচয় কে কন্ট্রোল করা আমাদের দায়িত্ব । প্রকৃতির প্রত্যেকটি এলিমেন্ট আমাদের জন্য এসেনশিয়াল জীব জগতের শ্রেষ্ঠ প্রাণী উপাধি যখন আমাদের কাছে আছে তাহলে পৃথিবীতে সুরক্ষিত রাখা আমাদের দায়িত্ব ।


কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Don't Miss
© all rights reserved
made with by templateszoo